‘ডিজিটাল হসপিটাল’ অনলাইনে স্বাস্থ্যসেবা দেবে

‘ডিজিটাল হসপিটাল’ অনলাইনে স্বাস্থ্যসেবা দেবে

ঢাকা: মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবা আরও সহজলভ্য করে তুলতে ডিজিটাল হেলথকেয়ার সলিউশানস (ডিএইচ) চালু করেছে ‘ডিজিটাল হসপিটাল’। এ অ্যাপের মাধ্যমে গ্রাহকরা পাচ্ছেন বিভিন্ন ধরনের হেলথ মেম্বারশিপ প্ল্যান দ্বারা উন্নত স্বাস্থ্যসেবা ও বিভিন্ন পার্টনারশিপ সেবায় ছাড়।

ডিজিটাল হসপিটাল ডিএইচ এর একটি সোশ্যাল ব্র্যান্ড। এর মাধ্যমে গ্রাহকরা নিজ বাসা থেকে খুব সহজেই পেতে পারেন চিকিৎসা পরামর্শ (ডক্টর চ্যাট, ভিডিও কল, কলের মাধ্যমে) এবং চিকিৎসা ক্যাশব্যাকের মতো সুবিধা, মোবাইল দিয়ে ওয়েবসাইট অথবা অ্যাপ এর মাধ্যমে। বিভিন্ন ধরনের মানুষের চাহিদা অনুযায়ী তৈরি প্যাকেজ গুলো রেজিস্ট্রেশনের পর দেশের যে কোনো স্থান থেকেই ব্যবহার করা যাবে।

সরকার নিবন্ধিত ও বিশ্বমানের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ১২০ জনেরও বেশি বিশেষজ্ঞ ও এমবিবিএস চিকিৎসক দিয়ে ডিজিটাল হসপিটালে সেবা দেওয়া হবে।

চিকিৎসা পরামর্শ এবং এসএমএস ও অ্যাপ এর মাধ্যমে ডিজিটাল প্রেসক্রিপশন পাওয়ার পাশাপাশি, গ্রাহকরা ওষুধ ডেলিভারি পাচ্ছেন বিভিন্ন ছাড়ে। এছাড়া বাসা থেকে স্যাম্পল সংগ্রহ করে মেডিক্যাল টেস্টের সুযোগ, ডিজিটাল হসপিটালের হেলথ পার্টনারদের মাধ্যমে।  আরও থাকছে হাসপাতাল সংক্রান্ত খরচে, চিকিৎসা ক্যাশব্যাক।

ডিজিটাল হসপিটালের লক্ষ্য: মোবাইল ফোনের মাধ্যমে উন্নতমানের চিকিৎসাসেবা সরবরাহ করে স্বাস্থ্যসেবা খাতে পরিবর্তন আনা। চিকিৎসাসেবা আরও সহজলভ্য করে দরিদ্র ও গ্রামীণ মানুষের জন্য স্বাস্থ্যসেবা খরচ কমিয়ে আনা।

ডিজিটাল হসপিটালের প্রথম প্যাকেজ, ‘আমরা সুরক্ষিততে থাকছে আনলিমিটেড ডাক্তারি পরামর্শ-ডক্টর চ্যাট, ভিডিও কল ও কলের মাধ্যমে এবং পাশাপাশি আরও থাকছে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত চিকিৎসা ক্যাশব্যাক ছয় জন পরিবার সদস্যের জন্য। ১০ হাজার টাকা জীবন বিমা প্রাথমিক সদস্যের জন্য মাত্র ৯৯ টাকায়। এ ধরনের আরও বেশ কিছু প্যাকেজ চালু করার পরিকল্পনা রয়েছে ডিজিটাল হসপিটাল। সেগুলোর মধ্যে দুই লাখ ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত চিকিৎসা ক্যাশব্যাক আরও থাকছে বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্যজনিত সমস্যা সমাধানের জন্য বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শের ব্যবস্থা।

ডিজিটাল হসপিটালের ওয়েবসাইট care.dh.health অথবা অ্যাপ এর মাধ্যমে খুব সহজেই যে কেউ প্যাকেজগুলোর জন্য রেজিস্ট্রার করে যে কোনো জায়গা থেকে যে কোনো সময় নিতে পারবেন চিকিৎসক পরামর্শ।

এ বিষয়ে ডিএইচ এর প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সাজিদ রহমান বলেন, আমাদের লক্ষ্য দেশের মানুষের সেবা করা। মানসম্মত স্বাস্থ্যসেবার মাধ্যমে এবং আমাদের প্রচেষ্টার মাধ্যমে আমরা দেশের মানুষের জীবনে স্বাস্থ্যসেবার ক্ষেত্রে ইতিবাচক পরিবর্তন আনতে আশাবাদী।

ক্লিনিকাল অপারেশনস বিভাগের প্রধান ডা. খালেদ হাসান বলেন, আমরা আমাদের রোগীদের বাড়িতে বসে সহজে উন্নতমানের স্বাস্থ্যসেবা দেওয়ার চেষ্টা করছি। এটি মানসম্পন্ন স্বাস্থ্যসেবাকে আরও সহজলভ্য করে তোলার পাশাপাশি করোনা ভাইরাস সংক্রমণ রোধ করতেও সহায়তা করবে। কারণ রোগীদের একেবারে প্রয়োজন ছাড়া হাসপাতালে যাওয়ার দরকার পড়বে না।