চতুর্থ দিন পর সূচক সামান্য বেড়েছে

চতুর্থ দিন পর সূচক সামান্য বেড়েছে

ঢাকাটানা চার কার্যদিবস পতনের পর বুধবার (২৩ সেপ্টেম্বর) পুঁজিবাজারে সূচক সামান্য বেড়েছে। এদিন দেশের প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে (সিএসই) লেনদেনও বেড়েছে।

গত বৃহস্পতি থেকে মঙ্গলবার টানা চার কার্যদিবস পুঁজিবাজারে সূচকের পতন হয়।

ডিএসই ও সিএসই সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে।

বাজার বিশ্লেষণে দেখা যায়, বুধবার ডিএসই প্রধান মূল্য সূচক ডিএসইএক্স ২ পয়েন্ট কমে চার হাজার ৯৭২ পয়েন্টে অবস্থান করছে। এ দিন অন্য দুই সূচকের মধ্যে ডিএসইর শরীয়াহ সূচক ১ পয়েন্ট কমে এবং ডিএসই-৩০ সূচক ৫ পয়েন্ট কমে যথাক্রমে ১১২৫ ও ১৭০৮ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

ডিএসইতে বুধবার ৮৮১ কোটি ৮১ লাখ টাকার শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের লেনদেন হয়েছে। আগের কার্যদিবসের চেয়ে ১৫২ কোটি টাকা বেশি। আগের দিন ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৭২৯ কোটি ৯২ লাখ টাকার।

ডিএসইতে ৩৫৬টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের লেনদেন হয়েছে। এগুলোর মধ্যে দাম বেড়েছে ১৭৪টি কোম্পানির, কমেছে ১৩৭টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৫টি কোম্পানির শেয়ার ও মিউচ্যুয়াল ফান্ডের ইউনিটের দর।

বুধবার লেনদেনের শীর্ষে থাকা ১০ প্রতিষ্ঠান হলো- বেক্সিমকো ফার্মা, ডেল্টা হাউজিং, বেক্সিমকো লিমিটেড, রূপালী ইন্স্যুরেন্স, স্ট্যান্ডার্ড ইন্স্যুরেন্স, পূরবী জেনারেল ইন্স্যুরেন্স, ব্র্যাক ব্যাংক, পপুলার লাইফ ইন্স্যুরেন্স, স্কয়ার ফার্মা ও ফেডারেল ইন্স্যুরেন্স।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ১১ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৪ হাজার ১৮১ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৯৪টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ১৩৬টির, কমেছে ১১২টি এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ৪৬টির কোম্পানির শেয়ার দর। সিএসইতে ২১ কোটি ২২ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। যা আগের দিনের চেয়ে ৪ কোটি টাকা বেশি। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ১৭ কোটি ১৬ লাখ টাকার।