রাজস্থানকে হারিয়ে শীর্ষে দিল্লি

রাজস্থানকে হারিয়ে শীর্ষে দিল্লি

আগের ম্যাচগুলোর মতো দিল্লি ক্যাপিটালসের টপ অর্ডার এই ম্যাচেই জ্বলে ওঠেনি। কিন্তু মিডল অর্ডার ক্লিক করেছে।

আর তাতে ভর করে রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে বড় জয় তুলে নিয়ে পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে উঠেছে দিল্লি।

পৃথ্বী শ ব্যর্থ হলে শ্রেয়াস আইয়ার আছেন। যদি অধিনায়ক ব্যর্থ হন, মার্কাস স্টইনিস আছে। ব্যাটিং ব্যর্থ হলে বোলিং আছে। পেসাররা ব্যর্থ হলে স্পিনাররা কাজ সেরে দেবে। ২০২০ আইপিএলে এতটাই ভালো দলে পরিণত হয়েছে দিল্লি ক্যাপিটালস। আরও একবার এমনই এক অলরাউন্ড প্রদর্শনীতে রাজস্থানকে ৪৬ রানে হারিয়েছে আইয়ারবাহিনী।

শুক্রবার (০৯ অক্টোবর) রাতে নতুন এক হিরো খুঁজে পেয়েছে দিল্লি। আর তিনি হলেন শিমরন হেটমায়ার। এই ক্যারিবীয় ব্যাটসম্যান দিল্লি ইনিংসের শেষদিকে ঝড় তুলেছেন এবং পরে ফিল্ডিংয়ে ৩টি গুরুত্বপূর্ণ ক্যাচও নিয়েছেন। বল হাতে দিল্লির রাবাদা, স্টইনিসদের নিয়ন্ত্রিত বোলিং রাজস্থানকে এই আসরের সর্বনিম্ন ১৩৮ রানে থেমে যেতে বাধ্য করে।

বল হাতে সব বোলারই উইকেট ভাগ করে নিয়েছেন। রাবাদা একাই নিয়েছেন ৩ উইকেট। ২টি করে উইকেট গেছে রবীচন্দ্রন অশ্বিন ও স্টইনিসের ঝুলিতে। ১ উইকেট করে তুলে নিয়েছেন বাকি ৩ বোলার।

ব্যটিংয়ে অবশ্য দিল্লির শুরুটা ভালো হয়নি। শারজাহ ক্রিকেট গ্রাউন্ড যেখানে এবার রানের ফোয়ারা দেখাচ্ছে, সেখানে ১৮৪ রান খুব বেশি সংগ্রহ নয়। তবে লড়াই করার মতো তো অবশ্যই। আর এই লড়াই করার সংগ্রহ এনে দিয়েছেন স্টইনিস ও হেটমায়ার। যদিও স্টইনিসের ৩৯ বলের ইনিংসটি এসেছে ৩০ বলে, কিন্তু ৪টি ছক্কা মেরে পুষিয়ে দিয়েছেন তিনি। আর হেটমায়ার ৪৫ রানের ইনিংস খেলেছেন মাত্র ২৪ বলে, যা ৫টি ছক্কা ও এক বাউন্ডারিতে সাজানো।

এই জয়ে ৬ ম্যাচে ৫ জয় নিয়ে শীর্ষে থাকা দিল্লির সংগ্রহ হলো ১০ পয়েন্ট। আর সমান ম্যাচে মাত্র ২ জয় নিয়ে সাতে আছে রাজস্থান।