দুই প্রার্থী যেভাবে জয় পেতে পারেন

দুই প্রার্থী যেভাবে জয় পেতে পারেন

অনলাইন ডেস্ক : পেনসিলভানিয়া, নেভাডা, অ্যারিজোনা, জর্জিয়া ও নর্থ ক্যারোলাইনা- এই পাঁচটি অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গরাজ্যের ভোট এখনও গণনা চলছে। শুধু পেনসিলভানিয়া অথবা বাকি চারটি রাজ্যের যে কোনো দু’টিতে জয় পেলে জো বাইডেন পরবর্তী প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হতে পারবেন। অন্যদিকে ট্রাম্পের আবারো হোয়াইট হাউজের দায়িত্ব ফিরে পেতে প্রয়োজন পেনসিলভানিয়া এবং বাকি চারটি রাজ্যের তিনটিতে বিজয়।

চূড়ান্ত ফলাফল কত দূরে?
বৃহস্পতিবারের ভোট গণনা এখনও শেষ হয়নি এবং বাকি পাচটি রাজ্যে কোনো নির্দিষ্ট প্রার্থী জয় পেতে যাচ্ছেন কি না, তাও এখন পর্যন্ত ধারণা করা সম্ভব হচ্ছে না। তবে জো বাইডেন ধীরে ধীরে বিজয়ের দিকে আগাচ্ছেন বলে মনে হচ্ছে। চারটি ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্যের ওপর এখন সবার নজর।

জর্জিয়া: এই রাজ্যে ট্রাম্প এখনও সামান্য ব্যবধানে এগিয়ে রয়েছেন। তবে বৃহস্পতিবারে যেখানে ১৮ হাজার ভোটে এগিয়ে ছিলেন তিনি, শুক্রবার সকাল ১১ টা (বাংলাদেশ সময়) পর্যন্ত ঐ ব্যবধান কমে দাঁড়িয়েছে ১,৮০০ ভোটে। এখনও প্রায় ১৫ হাজার ভোট গণনা বাকি রয়েছে। নেভাডা: দিনের শুরুতে বাইডেন এগিয়ে ছিলেন ৮ হাজার ভোটে, এখন ১১ হাজার ভোটে এগিয়ে রয়েছেন তিনি। পেনসিলভানিয়া: বৃহস্পতিবার দিনের শুরুতে ট্রাম্প এগিয়ে ছিলেন ১ লাখ ৬০ হাজার ভোটে। তবে মেইল-ইন ব্যালট গণনা শুরু হওয়ার পর থেকে ব্যবধান কমতে শুরু করে। এখন ট্রাম্প এগিয়ে রয়েছেন প্রায়ঢ ২৫ হাজার ভোটে, আর গোনা বাকি ২ লাখ ২০ হাজার ভোট।অ্যারিজোনা: বাইডেন এখানে ৬৯ হাজার ভোটে এগিয়ে ছিলেন, এখন তা কমে দাঁড়িয়েছে ৪৬ হাজার ভোটে। এখনও ২ লাখ ২০ হাজারের বেশি ব্যালট গণনা বাকি রয়েছে।

এদিকে, অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ ব্যাটলগ্রাউন্ড রাজ্যে একই ধরণের পদক্ষেপ নেয়ার পর নেভাডাতেও মামলা করেছে ট্রাম্প শিবির। মার্কিন সম্প্রচার মাধ্যম এবিসি নিউজের খবর অনুযায়ী, অভিযোগ গুলোর মধ্যে কয়েকটি এরই মধ্যে আদালতের সামনে উপস্থাপন করা হলেও সেগুলো অসফল হয়েছে। সেগুলোর মধ্যে ব্যালট গণনা বন্ধ করার একটি দাবিও ছিল। কোনো ধরণের প্রমাণ পেশ না করে মামলার অভিযোগে বলা হয়: “ক্লার্ক কাউন্টির নির্বাচনে বিপুল পরিমাণ অস্বাভাবিকতা ছিল। তার মধ্যে ৩ হাজারের বেশি অযোগ্য মেইল ইন ভোট ছিল।” যেসব রাজ্যে বাইডেন এগিয়ে রয়েছেন বা ট্রাম্পের এগিয়ে থাকার ব্যবধান কমে গেছে, সেসব রাজ্যে নির্বাচনি কারচুপির অভিযোগ তুলেছেন ট্রাম্প। সূত্র : বিবিসি বাংলা