অবহেলিত একটি গ্রাম দুধল ইউনিয়নের চর সতরাজ

অবহেলিত একটি গ্রাম দুধল  ইউনিয়নের চর সতরাজ

মো:রানা সন্যামত”
বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলার চর সতরাজ একটি অবহেলিত গ্রাম। তা শুধু দুটি সাকু ও একটি রাস্তার কারণে। এ গ্রামের ৮০ শতাংশ লোক বর্তমান সরকার সমার্থক। তবে আজও গ্রামটি উন্নয়নের ছোঁয়া পায়নি। এলাকার সূত্রে জানা যায় দুধল ইউনিয়নের চর সতরাজ গ্রামটি কারখানা নদীর পারাপারের দুর্ভোগ অবস্থায় আছে চর সতরাজের সাধারণমানুষ ৫ শতাধিক পরিবার বসবাস করে। ৬ নং ফরিদপুর ইউনিয়নের ফরিদপুরের কার্পেটিং সড়ক থেকে চর সতরাজের সংযোগ হলে স্কুল-মাদ্রাসা ব্যাংক-বীমা যাতায়াতে সুযোগ সুবিধা হত। এই গ্রামে একটি শেখ রাসেল স্মৃতি প্রাথমিক বিদ্যালয় অবস্থিত। মুসলমানদের ধর্ম প্রাণ কেন্দ্র একটি মসজিদ রয়েছে স্কুল পড়ুয়া ছাত্র ছাত্রীদের ও সাধারন জনগণের যে কোন সমস্যার সম্মুখীন হলে হাট-বাজার করতে হলে কাকরধা আসতে হয়।

দুধল ইউনিয়নের চর সতরাজ গ্রামে অসহায় দরিদ্র মানুষগুলি দুধল ইউনিয়ন চেয়ারম্যানের যেকোনো বিষয়ে ও উন্নয়ন থেকে বঞ্চিত। ফরিদপুর খেয়াঘাট থেকে চর সতরাজ খেয়াঘাট পর্যন্ত দুই কিলোমিটার কাঁচা, রাস্তাটি পাকা সড়ক হলে সব ধরনের যানবাহন চলাচলের সুযোগ সুবিধা হত।

গ্রামের মানুষকে অবহেলিত রেখে উন্নত বাংলাদেশ গড়া সম্ভব নয়, তাই গ্রামে শহরের সব সুযোগ-সুবিধা পৌঁছে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো: তাজুল ইসলাম। গত রোববার স্থানীয় সরকার বিভাগ সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত ‘আমার গ্রাম আমার শহর: প্রতিটি গ্রামে আধুনিক নগর সুবিধা সম্প্রসারণʼ-এর লক্ষ্য। কর্মপরিকল্পনা বাস্তবায়নে গঠিত আন্তমন্ত্রণালয় কমিটির প্রথম সভায় সভাপতির মন্তব্য মন্ত্রী এ কথা বলেন।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, উন্নত জীবনের আশায় মানুষ গ্রাম ছেড়ে শহরে আসছে। আমরা যদি গ্রামে শহরের সব সুবিধা নিশ্চিত করি তাহলে মানুষ আর শহরে আসবেনা। গ্রামাঞ্চলে বিভিন্ন কল-কারখানা স্থাপনের মাধ্যমে ব্যাপক কর্মস্থান তৈরি করার কথাও জানান তিনি।