কোম্পানীগঞ্জে সংঘর্ষে ঘটনায় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান গ্রেপ্তার

কোম্পানীগঞ্জে সংঘর্ষে ঘটনায় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান গ্রেপ্তার

নোয়াখালী প্রতিনিধি:
সারাদেশে আলোচিত নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আ.লীগের দু’পক্ষের সংঘর্ষের ঘটনায় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলকে গ্রেফতার করেছে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যরা।
বৃহস্পতিবার (১১ মার্চ) সন্ধ্যা সোয়া ৭টার দিকে জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) আলমগীর হোসেন গ্রেফতারের বিষয়টি গণমাধ্যমকে নিশ্চিত করেন।

 
এরআগে, বিকেল ৪টার দিকে সাদা পোশাকে আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যরা নোয়াখালী প্রেসক্লাবের সামনে থেকে তাকে আটক করেন।
গ্রেফতার মিজানুর রহমান বাদল (৪৯) উপজেলার চরফকিরা ইউনিয়নের ১ নম্বর ওয়ার্ডের চরকালী গ্রামের মৃত মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল আলম চৌধুরীর ছেলে, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান।

মিজানুর রহমান বাদলের ছোট ভাই রহিম উল্যাহ বিদ্যুত জানান, ভাইয়া নিজেই নোয়াখালী ডিবি পুলিশের হাতে ধরা দিয়েছেন। আইন শৃঙ্খলাবাহিনী কেন কাদের মির্জাকে গ্রেফতার করছেনা।

তাই তিনি নিজে ধরা দিয়েছেন বলে বিদ্যুত দাবি করেন।
প্রসঙ্গত, গত দুই মাস ধরে বাংলাদেশ আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই মেয়র মির্জা কাদেরের সঙ্গে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আ.লীগের বিরোধের জের ধরে পুরো উপজেলায় এক অস্থিতিশীল পরিবেশের সৃষ্টি হয়।

এক সময় দু’গ্রুপের মধ্যে ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দিলে পৃথক পৃথক এলাকায় দু’বার রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। গোলাগুলিতে সাংবাদিক বোরহান উদ্দিন মুজাক্কির সহ সিএনজি চালক ও যুবলীগ কর্মী আলাউদ্দিন গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা যান।