পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আপ্তের আমিরের উপর সন্ত্রাসী হামলা – মানবতারকণ্ঠ

পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আপ্তের আমিরের উপর সন্ত্রাসী হামলা – মানবতারকণ্ঠ

বাউফল প্রতিনিধি:
পটুয়াখালী জেলার বাউফল থানায় আর কত এভাবে সাধারণ মানুষের চোখের পানি ঝরাবে। খুন গুম ধর্ষণ ও সন্ত্রাসী হামলার শিকার হয় প্রতিনিয়ত বাউফলের মানুষ। আর কত অত্যাচারিত হলে জেগে উঠবে এই উপজেলার আইনের সুশাসন।
বাউফল কালিশুরী ইউনিয়নের সিংহেরাকাঠী গ্রামের আপ্তের খান( ৫৫) পেশাদার স্বনামধন্য আমিনকে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে স্থানীয় সন্ত্রাসীরা।
গত ১১/৪/২১ তারিখ রবিবার ইউনিয়নের আড়াইনাও গ্রামের ফজলু হাজী বাড়ি মাপজোক ও ভাগ বন্টন শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে ছিটকে বাজারের পশ্চিম পাশে মহিষ বাড়ির পোল সংলগ্ন বিকেল ৫টার দিকে এ ঘটনা ঘটে
স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে কালিশুরী স্লোব হাসপাতালে ভর্তি করে।পরে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেরেবাংলা হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়।

ভিভিকটিম পরিবার সূত্রে জানা যায় আড়াইনাও গ্রামের ফজলু হাজী বাড়ি মাপজোফ ও ভাগ বন্টন শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে মহিষ বাড়ির ফুলের পশ্চিম পাশে আসলে ঝোপের মধ্যে ওত পেতে থাকা সন্ত্রাসীরা বের হয়ে মোটরসাইকেল থামিয়ে তাদের হাতে থাকা ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় হাতে ও হাঁটতে কুপিয়ে গুরুতর আঘাত এবং সমস্ত শরীলে লোহার পাইপ দিয়ে পিটিয়ে নীলা ফুলা জখম করে। ঘটনার স্থান থেকে মোটরসাইকেল ড্রাইভার কাদের পালিয়ে যায়। সন্ত্রাসীরা একপর্যায়ে তার মৃত্যু নিশ্চিত করে একটি পাতা বনের ডোবার ভিতরে ফেলে চলে যায়। এক পথচারী ওই পথ দিয়ে আসার সময় মানুষের মাগো বাবাগো করে চিৎকারের শব্দ পেয়ে এগিয়ে আসলে তাকে দেখতে পায়।পথচারীর ডাক চিৎকার দিলে স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে।

ধারণা করা হয় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এই সন্ত্রাসী হামলা করানো হয়ছে।এর পূর্বে একই ব্যক্তি ধারা আরো দুজনকে এভাবেই এই সন্ত্রাসীদের দ্বারা আঘাত করানো হয়েছে।
এই সন্ত্রাসী হামলার বিষয় জানতে চাইলে বাউফল থানার(ওসি তদন্ত ) মোঃ মামুন মানবতারকন্ঠকে বলেন আমি এই সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা মোবাইলের মাধ্যমে জানতে পেরেছি এবং আমাদের একটি টিম ওই ঘটনার স্থানে পাঠিয়েছি।এখন পর্যন্ত আমরা কোন লিখিত অভিযোগ পাইনি।লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।