ফ্রি ফায়ার ও পাবজি বন্ধের উদ্যোগ- মানবতারকণ্ঠ

ফ্রি ফায়ার ও পাবজি বন্ধের উদ্যোগ- মানবতারকণ্ঠ

মানবতারকণ্ঠ রিপোর্ট
কিশোর-কিশোরীদের শিক্ষাজীবন সুন্দর রাখতে মানসিক স্বাস্থ্য সুরক্ষায় ফ্রি ফায়ার ও পাবজি গেম নিয়ন্ত্রণ নিয়ে কাজ শুরু করেছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয় বলছে—এই গেম বন্ধে সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে।

করোনাকালে যখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঠিক তখনই কিশোর-কিশোরীরা ইন্টারনেটে এই খেলায় মেতে উঠেছে। এতে কিশোর বয়সেই শিক্ষার্থীদের মানসিক বিভিন্ন সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। শিক্ষার্থীরা কথা শুনছে না, এমনটাই দাবি করছেন অভিভাবকরা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেন, ‘ইন্টারনেটে নানা ধরনের গেম রয়েছে। এটা শুধু এককভাবে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের বিষয় নয়। আমরা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কাজ করছি। শিক্ষা মন্ত্রণালয়, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য মন্ত্রণালয় রয়েছে, সবাই একযোগে কাজ করবে। কিশোর-কিশোরীদের শারীরিক মানসিক স্বাস্থ্যসহ সকল বিষয়ে নিরাপদ রাখা, আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ।’

কত শিশু-কিশোর শিক্ষার্থীরা এ গেমস এর সঙ্গে জড়িত জানতে চাইলে দীপু মনি বলেন, ‘এ সংক্রান্ত পর্যালোচনা বা পরিসংখ্যান আমাদের হাতে নেই। এ বিষয়গুলো নিয়ে ব্যাপকভাবে কাজ করার সুযোগ রয়েছে।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার মানবতারকণ্ঠকে বলেন, ‘স্বরাষ্ট্র ও শিক্ষা মন্ত্রণালয় যদি এ বিষয়ে আলোচনা করে থাকে তাহলে হয়তো নিজেদের মধ্যে করে থাকবে। আমাদের কাছে কোনও সুপারিশ বা অনুরোধ আসেনি। আর স্ব-উদ্যোগে এরকম নির্দেশনা তৈরি বা বাস্তবায়ন করা আমাদের এখতিয়ারের মধ্যে নয়। এ সম্পর্কে আমাদের সরকারের সিদ্ধান্ত দরকার হবে।’

এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে যোগাযোগ করে জানা গেছে, মন্ত্রী পর্যায়ে এ বিষয়টি কথা হলেও অফিসিয়াল কোনও পেপার-ওয়ার্ক হয়নি। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের রাজনৈতিক উইং বা মন্ত্রণালয়ের আইসিসিটি বিভাগ এ বিষয়ে ফাইল ওয়ার্ক করেনি।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (রাজনৈতিক ও আইসিটি) মো. জাহাংগীর আলম বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, মন্ত্রী পর্যায়ে হয়তো কথা হয়েছে। এখন পর্যন্ত (বুধবার-২৬ মে) অফিসিয়াল লেভেলে তথ্য শেয়ার হয়নি। কোনও অ্যাপস বা ওয়েবসাইট বন্ধ করতে হয়, তাহলে সেটা করবে বিটিআরসি। আমরা এগুলো মনিটর করি।