প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ- মানবতারকণ্ঠ

প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ- মানবতারকণ্ঠ

বিশেষ সংবাদদাতা:
২০২১ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। কীভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে শিগগিরই সেই কাঠামো ঠিক করতে জাতীয় প্রাথমিক শিক্ষা অ্যাকাডেমির (নেপ) মহাপরিচালককে মৌখিকভাবে নির্দেশ দেওয়া হয়।

জানতে চাইলে নেপ মহাপরিচালক মো. শাহ আলম মানবতারকণ্ঠকে বলেন, ‘কীভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে সেই কাঠামো ঠিক করতে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে মৌখিকভাবে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। পুরাতন কাঠামোতে এখন আর পরীক্ষা নেওয়া যাবে না। তাই শিগগিরই কাঠামো সংশোধন করা হবে। প্রশ্নপত্র তৈরি করার মতো প্রস্তুতি আমাদের রয়েছে। শিগগিরই একটি ওয়ার্কশপ করবো। ওয়ার্কশপে কাঠামো চূড়ান্ত করে মন্ত্রণালয়ে পাঠাবো। ’

গত ২৪ জুন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা কীভাবে নেওয়া হবে তার কাঠামো তৈরি করতে বলা হয়। ওই নির্দেশনার পর কাঠামো সংশোধনের কাজ শুরু করেছে নেপ।

অধিদফতর সূত্রে জানা গেছে, চলতি বছর যে কয়দিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান চালানো সম্ভব হবে সে কয়দিনের সংক্ষিপ্ত পাঠ্যসূচি অনুযায়ী প্রশ্নপত্র তৈরি করে পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি নেওয়া হচ্ছে। জুলাই মাস থেকে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলার টার্গেট রেখে পরীক্ষার প্রস্তুতি রাখা হয়। যদি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান জুলাই এবং আগস্টে খোলা সম্ভব না হয় তাহলে সেপ্টেম্বরে খোলার প্রস্তুতি অনুযায়ী পাঠ্যসূচির আলোকে প্রশ্নপত্র তৈরি করা হবে।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক আলমগীর মুহম্মদ মনসুরুল আলম বলেন, ‘যদি পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত বহাল থাকে তাহলে ৩ মাস ক্লাস নিতে পারলেও আমরা পরীক্ষা নিতে পারবো। ’

‘পরীক্ষা নেওয়া হবে না’- গণমাধ্যমের এমন প্রতিবেদনে পরিপ্রেক্ষিতে মহাপরিচালক বলেন, ‘আমরা কখনও বলিনি যে পরীক্ষা নেওয়া হবে না। সিদ্ধান্ত বহাল থাকলে বছরের শেষ সময়ে হলেও পরীক্ষা নেওয়া হবে।‘

‘প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা নেওয়া হবে না’ গণমাধ্যমে প্রকাশিত এমন প্রতিবেদন বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষা বিভাগের সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান বলেন, ‘আমরা পরীক্ষা নেওয়ার অনুরোধ প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতরকে আগেই জানিয়ে রেখেছি। পরীক্ষা নেওয়া হবে না এ কথা বলা হয়নি। আমরা কোনও সুপারিশ এখনও করিনি।’

গত বছর ৮ মার্চ দেশে করোনা রোগী শনাক্ত হলে ওই বছর ১৭ মার্চ থেকে দেশের সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। সর্বশেষ আগামী ৬ আগস্ট পর্যন্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়।

উল্লেখ্য, প্রতি বছর নভেম্বরের মাঝামাঝি প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা শুরু হয়। করোনা সংক্রমণ রোধে ২০২০ সালের প্রাথমিক শিক্ষা সমাপনী ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষা নেওয়া হয়নি। প্রাথমিক শিক্ষা অধিদফতর জানায়, চলতি বছর পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি রাখা হয়েছে। তবে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত বহাল থাকবে কিনা তা নির্ভর করবে করোনা পরিস্থিতির ওপর।