ফরিদপুর জমির মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্বে গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ। মানবতারকণ্ঠ

ফরিদপুর জমির মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্বে গাছ কেটে নেওয়ার অভিযোগ। মানবতারকণ্ঠ

বাকেরগঞ্জ বরিশাল প্রতিনিধি:
বরিশাল বাকেরগঞ্জে ফরিদপুর জমির মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্বে একপক্ষের গাছপালা কেটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মান্নান ওয়াজেদ এর বিরুদ্ধে। জমির মালিকানা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে চলা দ্বন্দ্বে জমি দখল নিতে গিয়ে গাছপালা কেটে নেওয়া হয় বলে অভিযোগ করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে আদালতে মামলা করা হয়েছিল যাহার নং সি,আর-১০৯/১৯।

বাকেরগঞ্জ উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নের মঙ্গলসী গ্রামের প্রয়াত আব্দুল করিম হাওলাদার বাবুলের সঙ্গে কাকরধা গ্রামের প্রয়াত মান্নান হাওলাদার এর সঙ্গে বিরোধ চলছে। দীর্ঘদিন ধরে দু’পক্ষের মধ্যে জমির মালিকানা নিয়ে চলছে বিরোধ। এ নিয়ে আদালতে মামলা করেছেন আব্দুল করিম। মামলা সূত্রে জানা যায় করিমের গাছ কাটা হয়নি এখন একই জায়গার গাছ জোরপূর্বক কেটে নিয়ে যায় জমি দখলে নেওয়ার চেষ্টা করে,মন্নান হাওলাদারের ছেলেরা,ও তার বোন জামাতা ওয়াজেদ আলী শিকদার,টিটু শিকদার,মাসুদ হাওলাদার,আনু সিকদার।

গত সোমবার জোরপূর্বক জমি দখলে নেওয়ার কেন্দ্র করে একটি পুকুরপাড়ের ৩ থেকে ৪টি মেহগনি গাছ কেটে নেয় কলাগাছ ও অন্যান্য ফলদ গাছ কেটে ফেলে প্রতিপক্ষের লোকজন। বিষয়টি নিয়ে বরিশাল জেলা পুলিশ সুপার বরাবর প্রশাসনিক আইন সহায়তা চেয়ে একটি অভিযোগ করা হয়েছে ১০,৬,২১ তারিখে ফরিদপুর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয় লিখিত অভিযোগ করেন।

আব্দুল করিম হাওলাদার বাবুল বলেন, আমার বাবার সম্পত্তি ভাতশালা মৌজার জেল,এল নং১৩৩ এস খতিয়ান নং ৬৭৯ দাগ নং ৭০,৭১সূত্রে আমি মালিক। সেই জমির অনেকদিন আগে পুকুরপাড়ের গাছগুলো নির্বিচারে আড়াই লাখ টাকা গাছ বিক্রি করে নিয়ে যায়। গত সোমবার জোরপূর্বক আমার গাছ কেটে ফেলে আমি গাছ কাটায় বাধা দিলে আমাকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল ও মারপিট করে আমার ছেলে সহ খুনজখম ও প্রাণনাশের হুমকি দেয়।

মান্নান হাওলাদার বোন জামাতা ওয়াজেদ আলী শিকদার বলেন। এই জমি আমাদের ভোগদখলেও ছিল। কিন্তু জমি ক্রয় সূত্রে মালিক মান্নান হাওলাদার আমি তার বোন জামাতা জমি দেখাশোনার দায়িত্ব পালন করি। এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তি ও মানবাধিকারকর্মী জাহাঙ্গির মল্লিক বলেন এই সম্পত্তির মালিক বাবুল হাওলাদার কিন্তু মান্নান হাওলাদার অন্য মালিকের কিছু আংশিক জমি ক্রয় করেছেন সেই কারণে পুকুরপাড়ের গাছ জোরপূর্বক কেটে নেয় বাবুলের প্রতিপক্ষ অর্থ-সম্পদ ও ক্ষমতার অপব্যবহার করে অনেকদিন আগে অনেক টাকার গাছ বিক্রি করে ফেলছে গত সোমবার জোর করে আরো চারটি গাছ কেটে নেয় এ বিষয়ে স্থানীয় চেয়ারম্যান কে জানালে তিনি বিষয়টি বৃহস্পতিবার মীমাংসা করবে বলে আশ্বাস দেন। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এস এম শফিকুর রহমান চেয়ারম্যান বলেন আমি একটি গ্রাম সমাচার পত্রিকা সাংবাদিকতা করেছি। এবং বিষয়টি আমি দেখবো বলে আশ্বাস দিয়েছেন।