আরও আড়াই লাখ আশ্রয়ণ প্রকল্পের গৃহহীন ঘর অনুমোদন: একনেকে

আরও আড়াই লাখ আশ্রয়ণ প্রকল্পের গৃহহীন ঘর অনুমোদন: একনেকে

মানবতারকণ্ঠ রিপোর্ট:
আশ্রয়ণ প্রকল্পের আওতায় নতুন করে আরও আড়াই লাখ গৃহহীন পরিবারের জন্য ঘর নির্মাণ করতে যাচ্ছে সরকার। এবার প্রতিটি ঘর নির্মাণ বাবদ আগের চেয়ে বরাদ্দ বাড়ছে। প্রতিটি ঘর নির্মাণের ব্যয় বিদ্যমান দুই লাখ টাকা থেকে বাড়িয়ে দুই লাখ ৪০ হাজার করা হয়েছে। এ জন্য নতুন করে ব্যয় ধরা হয়েছে ছয় হাজার ৩১৬ কোটি ৭১ লাখ টাকা। নতুন লক্ষ্যমাত্রা অনুযায়ী সব মিলিয়ে আশ্রয়ণ-২ প্রকল্পের সংশোধনী ব্যয় ধরা হয়েছে ১১ হাজার ১৪২ কোটি ৮৭ লাখ টাকা।
মঙ্গলবার (৪ জানুয়ারি) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি- একনেকে এ সংক্রান্ত প্রকল্প পাস হয়েছে। এই প্রকল্পসহ একনেক ১১ হাজার ২১১ কোটি ৪৪ লাখ টাকা ব্যয়ে ১০টি প্রকল্প অনুমোদন করেছে। এর মধ্যে সরকারি অর্থায়ন ১০ হাজার ৭১৩ কোটি ২৫ লাখ টাকা এবং সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ৪৯৮ কোটি ১৯ লাখ টাকা।

প্রধানমন্ত্রী এবং একনেক চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে শেরেবাংলা নগরস্থ এনইসি সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে এতে যুক্ত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী।

অনুমোদিত অন্য প্রকল্পগুলো হচ্ছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের ‘চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের আওতায় এয়ারপোর্ট রোডসহ বিভিন্ন সড়কসমূহ উন্নয়ন ও গুরুত্বপূর্ণ অবকাঠামোগত উন্নয়ন’ প্রকল্প; স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ‘বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের জন্য লজিস্টিক্স ও ফ্লিট মেইনটেন্যান্স ফ্যাসিলিটিস গড়ে তোলা (প্রথম সংশোধিত)’ প্রকল্প; সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের ‘কুমারগাঁও-বাদাঘাট-এয়ারপোর্ট সড়ককে জাতীয় মহাসড়ক মানে ৪-লেনে উন্নীতকরণ’ প্রকল্প; তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়ের ‘বাংলাদেশ টেলিভিশনের কেন্দ্রীয় সম্প্রচার ব্যবস্থার আধুনিকায়ন, ডিজিটালাইজেশন ও অটোমেশন (প্রথম পর্যায়) (প্রথম সংশোধিত)’ প্রকল্প।
আরও রয়েছে ডাক ও টেলিযোগাযোগ  মন্ত্রণালয়ের ‘মোবাইল গেম অ্যাপ্লিকেশনের দক্ষতা উন্নয়ন (তৃতীয় সংশোধিত)’ প্রকল্প; ‘আশ্রয়ণ-২ (চতুর্থ সংশোধিত)’ প্রকল্প। প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের ‘বেপজা অর্থনৈতিক অঞ্চল, মিরসরাই-প্রথম পর্যায় (প্রথম সংশোধিত)’ প্রকল্প; পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের দুটি প্রকল্প যথাক্রমে ‘বরগুনা জেলার অধীন পোল্ডার ৪৩/১ ও ৪৪টি পুনর্বাসন এবং ঝুঁকিপূর্ণ অংশ পায়রা নদীর ভাঙন হতে প্রতিরক্ষা’ প্রকল্প এবং ‘কুড়িগ্রাম জেলার চিলমারী ও উলিপুর উপজেলায় ব্রহ্মপুত্র নদের ডানতীর ভাঙনরোধ (প্রথম সংশোধিত)’ প্রকল্প এবং কৃষি মন্ত্রণালয়ের ‘পাটবিষয়ক মৌলিক ও ফলিত গবেষণা (তৃতীয় সংশোধিত)’ প্রকল্প।
পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল, কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. মোহাম্মদ হাছান মাহমুদ, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, বন ও পরিবেশমন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী এবং সংশ্লিষ্ট মন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীরা সভার কার্যক্রমে অংশ নেন।