বাকেরগঞ্জ উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নে একটি সরকারি ঘর পেতে অসহায় মাঝু বিবীর আর্তনাদ।

বাকেরগঞ্জ উপজেলার ফরিদপুর ইউনিয়নে একটি সরকারি ঘর পেতে অসহায় মাঝু বিবীর আর্তনাদ।

নজরুল ইসলাম আলীম।
বাকেরগঞ্জ উপজেলার ৬ নং ফরিদপুর ইউনিয়নের ভোজমহল গ্রামের মৃত্যু – মহের উদ্দিন সরদার এর কন্যা মাঝু বিবী। প্রায় ৪০ বছর আগে তার পিতার মৃত্যু হলে স্বামী কাজল খানকে নিয়ে বাবার বাড়িতে বসবাস করেন তিনি। প্রায় ৮ বছর আগে মাঝু বিবীর স্বামী কাজল খান মৃত্যু বরন করলে তার একমাত্র পুত্র আতিকুর রহমানকে নিয়ে অসহায় হয়ে পরেন তিনি।অনুসন্ধানে জানা যায়, ৬৫ বছরের বৃদ্ধা দরিদ্র মাঝু বিবী কাকরদা বাজারে ভাতের হোটেল চালিয়ে সংশার চালিয়ে আসছেন। গত দের বছর আগে এক মাত্র ছেলে আতিকুর শারীরিক অসুস্থ হয়ে বিনা চিাকিৎসায় মারা যায়। আতিকুর পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেও রেখে গেছেন ৮ বছরের এক পুত্র সন্তান ও দের বছরের শিশু কন্যা।একমাত্র পুত্র আতিকুরকে হারিয়ে অসহায় মাঝু বিবীর জীবনে নেমে আসে অন্ধকারের ছায়া। সংশারের একমাত্র উপার্জনের ব্যাক্তি সন্তানকে হারিয়ে অনাহারে-অর্ধাহারে দিন কাটছে মাঝু বিবীর। কাকরদা বাজারে ভাতের হোটেল দিয়ে সংসারের অভাব যেন কাটছে না তার। পিত্রালয় তার বাবার রেখে যাওয়া ভিটেমাটি দখল করে নিয়েছে স্থানীয় ভূমিদস্যুরা। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের দুয়ারে দুয়ারে ধরনা দিয়েও ন্যায় বিচার পায়নি তিনি।অসহায় মাঝু বিবী বরিশাল সহকারি জজ আদালত দেওয়ানি মামলা করেন মামলায় রায় তার পক্ষে হলেও সম্পক্তি এখনো ফিরে পায়নি। নেই মাথা গোঁজার ঠাঁই ঘর টুকু। টিনের তৈরি একটি ছাপড়া থাকলেও উপরে নেই চালা। নেই দরজা জানালা। বর্ষা মৌসুমে বৃষ্টির পানি নিমিষেই প্রবেশ করে ছাপড়ার ভিতরে। অসহায় মাঝু বিবী একটি সরকারি ঘর পেতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।