বাসস্ট্যান্ডের আধিপত্য নেওয়াকে কেন্দ্রে দুইজনকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় মামলা, গ্রেপ্তার ১

বাসস্ট্যান্ডের আধিপত্য নেওয়াকে কেন্দ্রে দুইজনকে কুপিয়ে জখমের ঘটনায় মামলা, গ্রেপ্তার ১

বরিশাল অফিস।
বরিশাল নগরের রূপাতলী বাসস্ট্যান্ডের আধিপত্য নেওয়াকে কেন্দ্রে করে
বরিশাল জেলা বাস- মিনিবাস- মাইক্রোবাস-কোচ শ্রমিক ইউনিয়নের একাংশের সাধারণ সম্পাদকসহ দুজনকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

গতকাল সোমবার বরিশাল নগরের রূপাতলী বাসস্ট্যান্ডের আধিপত্য নেওয়াকে কেন্দ্রে করে বরিশাল সিটি করপোরেশনের মেয়র অনুসারী শ্রমিকেরা পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী অনুসারী জেলা বাস- মিনিবাস- মাইক্রোবাস-কোচ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সুমন মোল্লাকে (৪০) তাঁর সহযোগী আল আমিন (২৫) কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়।

এঘটনায় রাতেই আহত সুমন মোল্লার মা সেতারা বেগম বাদী হয়ে কোতয়ালি মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন।

মামলায় ১৫ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ২০ থেকে ২৫ জনকে আসামী করা হয়েছে।
বিষয়টি নিশ্চত করেছেন বরিশাল কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) লোকমান হোসেন।

মঙ্গলবার সকালে তিনি জানান, রুপাতলীতে সোমবার সুমন মোল্লার উপর হামলার ঘটনায় সুমন মোল্লার মা সেতারা বেগম বাদী হয়ে একটি মামলা দায়ের করেছেন। মামলায় বরিশাল সিটি কপোরেশনের ২৫ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর সাইদুর রহমান জাকির, বরিশাল মহানগর আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদুর রহমান মনির মোল্লা, ২৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মাসুম সহ ১৫ জনের নামধারী। এর মধ্যে ২৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি মাসুমকে সোমবার রাতে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

বরিশাল কোতয়ালি মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) লোকমান হোসেন আরো জানান, রাতে মামলা দায়ের হওয়ার পর থেকে যারা এই ঘটনার সাথে জড়িত তাদের গ্রেপ্তারে কাজ করছে পুলিশ। পাশাপাশি ঘটনাস্থলেও পুলিশ মোতায়ন করা আছে। জনগনের নিরাপত্তার স্বার্থে রুপাতলী বাসস্ট্যান্ডে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়ন করা হয়েছে।

এদিকে, সোমবার রূপাতলী বাসস্ট্যান্ডের আধিপত্য নেওয়াকে কেন্দ্রে করে বরিশাল জেলা বাস- মিনিবাস- মাইক্রোবাস- কোচ শ্রমিক ইউনিয়নের একাংশের সাধারণ সম্পাদকসহ দুজনকে কুপিয়ে জখম করার ঘটনা ঘটে।
হামলায় জেলা বাস- মিনিবাস- মাইক্রোবাস- কোচ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সুমন মোল্লাকে (৪০) তাঁর সহযোগী আল আমিন (২৫) কুপিয়ে গুরুতর জখম করা হয়। এর মধ্যে গুরুত্বর আহত সুমন মোল্লাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করা হয়।

সোমবার ইফতারির কিছু আগে রূপাতলী সংলগ্ন বসুন্ধরা হাউজিংয়ের সুমন মোল্লার বাড়িতে এ হামলা চালানো হয়।

এসময় তাঁর বাড়িসহ আরও তিনটি বাড়িতে ব্যাপক ভাঙচুর চালানো হয়। তাঁদের গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সুমন মোল্লার স্ত্রী আইরিন আক্তার বলেন, সোমবার সন্ধ্যায় ইফতার করার জন্য সুমন মোল্লা রূপাতলী বসুন্ধরা হাউজিংয়ের বাড়িতে আসেন। ইফতারিরর ৬-৭ মিনিট আগে বাড়িতে প্রবেশ করার সময় ২৫-৩০ জন অস্ত্রধারী তাঁকে ধরে নিয়ে নিয়ে প্রকাশ্যে কোপাতে থাকে। এসময় তাঁর সঙ্গে থাকা আল আমিন তাঁকে রক্ষা করতে গেলে তাঁকেও কুপিয়ে জখম করা হয়। সুমন মোল্লার ডাক চিৎকারে বাড়ি ও প্রতিবেশিরা ছুটে এলে সন্ত্রাসীরা তাঁদের ওপর চড়াও হয় এবং সুমন মোল্লার বাড়ি ও পাশের আরও দুটি বাড়িতে ঢুকে ব্যাপক ভাঙচুর চালায়।

স্থানীয় কাউন্সিলের নেতৃত্বে সন্ত্রাসীরা এই হামলা চালায় বলে অভিযোগ করেন স্ত্রী আইরিন। বাসস্ট্যান্ডের নিয়ন্ত্রণ নিতে তাঁর ওপর এই হামলা হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেন তিনি।
আইরিন আক্তার অভিযোগ করেন, মেয়রের নির্দেশে তাঁর লোকেরাই এই হামলা করেছে।
হামলার সাথে স্থানীয় সাইদুর রহমান কাউন্সিলর জাকির , ২৫ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভপতি মাসুম, সাধারন সম্পাদক রনি, সোহেল মোল্লা, মনির মোল্লা ও মঈন সিকদার এ হামলা চালিয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে মেয়র অনুসারী বরিশাল জেলা বাস, মিনিবাস, কোচ ও মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি পরিমল চন্দ্র দাস বলেন, ‘আমরা সোমবার রূপাতলী এলাকায় যাইনি। তাই এটা কারা করেছে সে ব্যাপারে কিছুই জানি না। কেউ অভিযো করলেই সেটা সত্য হয়ে যায় না। ওখানে কী ঘটেছে সেটা আমাদের জানা নেই।