মাদক ব্যবসার সুবির্ধাথে সিসি ক্যামেরা বসালেন মাদক কারবারিরা। মানবতারকণ্ঠ

মাদক ব্যবসার সুবির্ধাথে সিসি ক্যামেরা বসালেন মাদক কারবারিরা। মানবতারকণ্ঠ

বরিশাল অফিস।
পাড়ায় পাড়ায় সিসি ক্যামেরা বসালেন মাদক কারবারি মাদক ব্যবসার সুবির্ধাথে সাধারন মানুষকে নজরদারিতে করতে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করেন বরিশাল নগরীর নিউ সদরঘাট রোড এলাকার গগনগলির বাসিন্দা পলাশ (৪০) নামে এক বাসিন্দা। এ নিয়ে এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা ও ব্যবসায়ীদের মাঝে ক্ষোভের তৈরী হয়েছে।

সিসি ক্যামেরা স্থাপনের প্রতিবাদ জানালে বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন অভিযুক্ত পলাশ ও স্থানীয়রা। শেষে পুলিশ এসে এলাকার উত্তেজনা নিরসন করেন। মঙ্গলবার (৫ এপ্রিল) বিকেলে এ করিম আইডিয়াল কলেজের সামনে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয়রা জানান, কিছু দিন ধরে পলাশ নগরীর পলাশপুর ব্রিজ থেকে শুরু করে গগণ গলি ও এর আশপাশে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করে। স্থানীয় বাসিন্দারা ক্যামেরা স্থাপনের কারন জানতে চাইলে তাদের সাথে খারাপ আচরণ ও হুমকি দেয়। আজ যখন এমন ঝামেলা হয় তখন স্থানীয় ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে অবগত করলে তিনি ঘটনা স্থলে পুলিশ পাঠান।

বিসিসির ৬নং ওযার্ড কাউন্সিলর খান জামাল হোসেন জানান, স্থানীয় জনগন আমাকে জানালে আমি কোতোয়ালি থানায় অবগত করি পরে থানা থেকে পুলিশ পাঠিয়ে দিয়েছে। আমার জানা মতে পলাশ একজন চিহ্নিত মাদক ব্যাবসায়ী। তার নামে একাধিক মামলা চলমান রয়েছে। বেশ কিছু দিন আগে আমি নিজেই তাকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়েছিলাম।

আমানতগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শহিদুল ইসলাম জনান, জানতে পেরেছি পলাশ নামে এক ব্যাক্তি কিছু সিসি ক্যামেরা বসিয়েছেন। কারন জানতে চাইলে তিনি জানান তার নিরাপত্তার জন্য এ ক্যামেরা বসিয়েছেন। তাকে বলেছি অনুমতি না নিয়ে ক্যামেরা বসানো যাবে না। সকালের মধ্যে ক্যামেরাগুলো খুলে নিতে হবে।

এ বিষয়ে পলাশের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হলে তার ব্যবহৃত ফোনটি তার স্ত্রী রিসিভ করে। ফলে তার বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।