বাচ্চা না হয়েই দুধ দিচ্ছে গরু। মানবতারকন্ঠ

বাচ্চা না হয়েই দুধ দিচ্ছে গরু। মানবতারকন্ঠ

বরিশাল প্রতিনিধি।
সাড়ে তিন বছর বয়সী এই বকনা গরুর দুধ দেওয়ার দৃশ্য দেখতে প্রতিদিন ভীড় করছেন এলাকার কৌতুহলী লোকজন। এটিকে অলৌকিক ঘটনা বলে মনে করছেন স্থানীয়রা। এমন ঘটনা ঘটেছে বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার কেদারপুর ইউনিয়নের পূর্ব ভূতেরদিয়া গ্রামের খামারী সিরাজুল হক মৃধার বাড়িতে। সিরাজুল হক জানান, সাড়ে তিন বছর আগে তার খামারে অষ্ট্রেলিয়ান জাতের কালো রংয়ের বাছুরটির জন্ম হয়। পরে তিনি গাভীটি বিক্রি করে বাছুরটি লালন-পালন করতে থাকেন। সাধারণত ১৮ মাসে একটি গরু প্রাকৃতিক ভাবে প্রজননের জন্য প্রস্তুত হয়। কিন্তু চিকিৎসকের মাধ্যমে চেষ্টা করেও তিনি তার ৩বছর ৬ মাসের বকনা গরুটির প্রজননের ব্যবস্থা করতে পারে নি। ৬ মাস আগে বকনা বাছুরটির শারীরিক পরিবর্তন লক্ষ্য করেন। তিনি দেখতে পান গরুর বাটগুলো দুধে ভরে আছে। খামারের অন্য গরুর বাছুর বাট থেকে দুধ খাচ্ছে। কিছুদিন পরে তিনি দেখেন গুরুটি শুয়ে থাকলে ঘরের মেঝেতে দুধ পরে থাকে। পরে তিনি বাট থেকে দুধ সংগ্রহ করতে শুরু করেন। প্রথম দিকে দুধ কিছুটা কম দিলেও বর্তমানে প্রতিদিন সকালে ৬ লিটারের মতো দুধ দিচ্ছে। সিরাজুল ইসলামের পরিবারের লোকজন বলেন, গর্ভধারণ না করে এবং কোনো বাছুর জন্ম না দিয়েই এক মাস ধরে প্রতিদিন দুধ দিয়ে যাচ্ছে আমাদের বকনা গরুটি। এটা আল্লাহর রহমত। আল্লাহ সবই পারেন। প্রতিদিন সিরাজুল ইসলাম (খামারি) নিজেই দুধ সংগ্রহ করে। দুধ দহন করে ৬০ টাকা লিটার দরে বিক্রি করে দিচ্ছি ও আমরা নিজেরাই খাচ্ছি। স্থানীয় পশু চিকিৎসক শাহে আলম বলেন, আমরা সাধারণত দেখি গর্ভধারণ করে বাছুর জন্ম দেওয়ার পরই সাধারণ বকনা গরু দুধ দিয়ে থাকে। এখানে এর বেতিক্রম হচ্ছে। এ নিয়ে কথা হলে বাবুগঞ্জ উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা(ভারপ্রাপ্ত) ডাঃ আবু সালেহ মো. ইফাত ইশতিয়াক বলেন, এ রকম ঘটনা সহসাই দেখা যায় না। এমনটি সাধারণত হরমোনগত কারণে হয়ে থাকে। তবে এসব গরুর দুধ পান করার ক্ষেত্রে কোনো রকম সমস্যা নেই। এই দুধ খুবই পুষ্টিকর ও সুস্বাদু।