জ্বালানি তেলের দামবৃদ্ধিতে:দেশকে শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। মানবতারকন্ঠ

জ্বালানি তেলের দামবৃদ্ধিতে:দেশকে শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। মানবতারকন্ঠ

বরিশাল জেলা প্রতিনিধ।
বরিশাল: জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর প্রতিবাদে বরিশাল নগরীতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে মহানগর বিএনপি। সমাবেশে বক্তারা বলেন, জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানোর মাধ্যমে দেশকে শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতির দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে।

শনিবার বেলা আড়াইটায় নগরীর পোর্টরোড থেকে মহানগর বিএনপির বিক্ষোভ মিছিল বের হয়ে গীর্জ্জামহল্লা ও সদর রোড প্রদক্ষিণ করে অশ্বিনী কুমার হল সংলগ্ন দলীয় কার্যালয়ে গিয়ে শেষ হয়। সেখানে অনুষ্ঠিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তারা বলেন, নিশিরাতের সরকার নিশিরাতেই সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম বাড়িয়েছে। এই সরকার জনগণের ভোটে নির্বাচিত হয়নি বিধায় একের পর এক গণবিরোধী সিদ্ধান্ত নিচ্ছে।

দেশ স্বাধীন হওয়ার পর কোনো সরকার এভাবে জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায়নি- একথা উল্লেখ করে বক্তারা বলেন, এমনিতেই দেশে নিত্যপণ্যের দাম আকাশচুম্বি। মানুষের বাঁচার কোনো পথ নেই। চারদিকে শ্বাসরূদ্ধকর পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

বক্তারা আরও বলেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতিতে দেশের মধ্যম ও নিম্ন আয়ের মানুষের কষ্ট হচ্ছে। এই অবস্থায় জ্বালানি তেলের দাম বাড়ায় দ্রব্যমূল্য আরও বাড়বে। এতে সাধারণ মানুষের জীবনে চরম দুর্ভোগ নেমে আসবে।

বিএনপি নেতারা বলেন, জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধির মাধ্যমে দেশকে শ্রীলঙ্কার মতো অবস্থার দিকে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু বাংলাদেশকে শ্রীলঙ্কা বানানোর জন্য দেশ স্বাধীন হয়নি। এই সরকারের বেপরোয়া লুটপাট দেশের আর্থ-সামাজিক অবস্থায় চরম অস্থিরতার সৃষ্টি করেছে। ব্যাংক খাতের অবস্থা খুবই খারাপ। তাই এই সরকারের পতন ঘটিয়ে দেশকে রক্ষা করতে হবে।

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক মনিরুজ্জামান খান ফারুক, সদস্য সচিব মীর জাহিদুল কবির, যুগ্ন আহ্বায়ক শাহ আমিনুল ইসলাম ও হাবিবুর রহমান টিপু, যুবদল নেতা তসলিম উদ্দিন ও হাফিজ আহমেদ বাবলু, স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা মাহবুবর রহমান পিন্টু এবং মশিউর রহমান মঞ্জু প্রমুখ।