জঙ্গিবাদ দমনে পুলিশের জিরো টলারেন্স নীতি : আইজিপি

জঙ্গিবাদ দমনে পুলিশের জিরো টলারেন্স নীতি : আইজিপি

সিলেট প্রতিনিধি।
জঙ্গিবাদ ও সন্ত্রাস দমনে পুলিশ জিরো টলারেন্স নীতিতে রয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন। তিনি বলেন, জঙ্গিদের উত্থানের সঙ্গে সঙ্গেই গ্রেফতার করা হয়।

দেশে হলি আর্টিজানের ঘটনার পরে আর কোনো বড় ধরনের জঙ্গির ঘটনা সংগঠিত হয়নি। জঙ্গিবাদ নিয়ন্ত্রণে ঈর্ষণীয় সাফল্য অর্জন করেছি এবং জঙ্গিবাদ পরিপূর্ণ নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

শুক্রবার বেলা ১১টায় সুনামগঞ্জ শহরের ওয়েজখালী এলাকায় পুলিশ লাইন্সে পুলিশের ক্রীড়া কমপ্লেক্স উদ্বোধনের পর স্থানীয় সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তরে আইজিপি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, পার্বত্য এলাকায় অভিযান চলছে। অভিযানের স্বার্থে কৌশলগত কারণে এ বিষয়ে আমরা কোনো কিছু বলতে চাই না। অভিযান শেষ হলে জানানো হবে। আইন ও নীতির আলোকে একযোগে বাংলাদেশে জঙ্গিবাদ পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। আমরা সব সময়ই জঙ্গিদের চেয়ে একধাপ এগিয়ে রয়েছি। জঙ্গিদের অপারেশনের আগেই আমাদের অভিযান পরিচালিত হয়।

জাতীয় নির্বাচন বিষয়ে আইজিপি বলেন, নির্বাচনকালীন কিংবা সাধারণ সময়ই হোক, কখন কীভাবে দায়িত্ব পালনে যথাযথভাবে পুলিশের প্রশিক্ষণ রয়েছে। আইন ও বিধির আলোকে আমরা দায়িত্ব পালন করে থাকি। দেশের আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির নিয়ন্ত্রণ রয়েছে। জাতীয় নির্বাচন শুধু নয়, সব নির্বাচনে পেশাদারিত্বের সঙ্গে পুলিশ সফলভাবে দায়িত্ব পালন করে আসছে। আগামীতেও তা অব্যাহত থাকবে।

আইজিপি বলেন, সুনামগঞ্জে টুরিস্ট পুলিশ স্থাপনের জন্য কাজ করা হবে। যাতে পর্যটকরা নিরাপদে পর্যটন কেন্দ্রগুলো ঘুরে ফিরে দেখতে পারেন। সুনামগঞ্জ জেলার বিভিন্ন পুলিশ ফাঁড়ির ও থানাগুলোর উন্নয়নে কাজ করা হবে।

পুলিশপ্রধান বলেন, বর্তমান সরকার পুলিশ বাহিনীকে একটি আধুনিক বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এখন থানার অবস্থা অনেক ভালো। সব থানাতেই যানবাহন রয়েছে। বাকি সমস্যার সমাধান খুব শিগগিরই হবে।

আইজিপি সুনামগঞ্জে গিয়ে নিজের অনুভূতি ব্যক্ত করে বলেন, দায়িত্ব গ্রহণের পর সুনামগঞ্জ জেলা আমার প্রথম সফর। আমি সুনামগঞ্জের হাওর এলাকার সন্তান। হাওরের মাটির সঙ্গে, পানির সঙ্গে মিলেমিশে আমি বড় হয়েছি। হাওরের ঢেউয়ে সাঁতার শিখেছি। উত্তাল হাওরের ঢেউ আর ঝঞ্ঝা বিক্ষুব্ধ রাত কাটিয়েছি। হাওর এলাকার মানুষ সংগ্রামী, তাদের সঙ্গে একসঙ্গে আমি বড় হয়েছি। এখানে এলে মনে হয় আমি মায়ের কাছে এসেছি। মাটির কাছে এসেছি।

এর আগে আইজিপি সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানায় পুলিশ শপিংমল ও পুলিশ ক্যাফের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন। পরে পুলিশ লাইন্স মিলনায়তনে পুলিশের কল্যাণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন।

সিলেট রেঞ্জ ডিআইজি মফিজ উদ্দিন আহম্মেদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন- পুলিশ সুপার মোহাম্মদ এহসান শাহ, সুনামগঞ্জ র‌্যাব ক্যাম্পের অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল সিঞ্চন আহমদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আবু সাঈদ, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সুমন মিয়া, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ পারভেজ আলম নিকুলিন চাকমা, সদর মডেল থানার ওসি ইখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরীসহ পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।