চলতি মাসেই নবম ওয়েজবোর্ডের প্রজ্ঞাপন জারি : তথ্যমন্ত্রী

91

মানবতার কন্ঠ ডেস্কঃ আগামী ২৮ জানুয়ারির মধ্যে নবম ওয়েজবোর্ড বাস্তবায়নের প্রজ্ঞাপন জারির ব্যবস্থা গ্রহণ এবং একই সঙ্গে আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুসারে সাংবাদিকদের জন্য আবাসনেরও ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া শুরু করবেন বলে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

সোমবার (১৩ জানুয়ারি) বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) নেতারা সচিবালয়ে নতুন তথ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন ও সংবর্ধনা দেন। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তথ্যমন্ত্রী এ বিষয়টি জানান।

নবনিযুক্ত এ তথ্যমন্ত্রী বলেন, গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে তার ঘর সংসার বহু বছরের। তার এই আজকের অবস্থানে উঠে আসার পেছনে সাংবাদিকদের গুরত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। ব্যক্তিগতভাবে সাংবাদিকদের বিভিন্ন সমস্যা সম্পর্কে আগে থেকেই জানেন তিনি। রাষ্ট্রের চতুর্থ স্তম্ভ সংবাদপত্র শিল্পকে বাঁচিয়ে রাখতে তিনি সকল ধরনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন বলেও আশ্বাস দেন।

রাষ্ট্রের চতুর্থ অঙ্গ গণমাধ্যম- উল্লেখ ক‌রে তি‌নি ব‌লেন, সংবাদমাধ্যমের সঙ্গে যদি রাষ্ট্রের উন্নতিকরণের কাজ না হয় তবে রাষ্ট্র ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সুতরাং আপনাদের সঙ্গে সম্মিলিতভাবে কাজ করাই মূল লক্ষ্য আমা‌দের। আপনাদের যদি কোনো অভাব অভিযোগ থাকে আমাকে সরাসরি বলবেন।

তি‌নি ব‌লেন, তথ্য মন্ত্রণালয়ের দায়িত্ব পাওয়ার পর আমি মনে করি, আমার প্রধান কাজ হলো সাংবাদিক বন্ধুদের কল্যাণ সাধন করা। বাংলাদেশে অনেক ভালো সংবাদমাধ্যম, প্রিন্ট এবং ইলেকট্রনিক গণমাধ্যম নানা কারণে বন্ধের পথে, সেগুলোকে কীভাবে রাষ্ট্রের পক্ষ থেকে সহায়তা করা যায় সে বিষ‌য়েও আলোচনা হ‌বে। যার ফলে ভালো সংবাদমাধ্যম টিকে থাকে। হারিয়ে না যায় সেজন্য আলোচনা হচ্ছে।’

সাংবাদিকদের উদ্দেশে তি‌নি ব‌লেন, আপনাদের কল্যাণে ব্যবস্থার পাশাপাশি দেশের জনগণের কল্যাণের সম্মিলিতভাবে যেন কাজ করতে পারি। সেজন্য আপনাদের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ অব্যাহত থাকবে। এই মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী হিসেবে আমার অন্যতম দায়িত্ব হলো সাংবাদিকদের কল্যাণ করা। যেকোনো দেশের উন্নয়নের জন্য সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার প্রয়োজন।‌ প্রধানমন্ত্রী সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা নিশ্চিত করেছেন । একইসঙ্গে আরো কিছু করার থাকলে যা যা করণীয় তা করা হবে।

তথ্যমন্ত্রী ‌ ব‌লেন, আমাদের সবার সচেতন হতে হবে যেন রাষ্ট্রের কল্যাণ হয়। সমালোচনা অবশ্যই হবে, দায়িত্ব থাকলে সমালোচনা হবে। কিন্তু সেই সমালোচনা যেন গঠনমূলক হয়। সে বিষয়ে সতর্ক হতে হবে সবাইকে।

হলুদ সাংবাদিকতার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য সাংবাদিকদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানি‌য়ে তি‌নি ব‌লেন, সকল সাংবাদিক চেষ্টা করেন বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ প্রকাশ করতে। কিন্তু দুএকজনের ভুলের জন্য কমিউনিটির বদনাম হতে পারে না। সেজন্য আমি মনে করি সাংবাদিক ইউনিয়নের দায়িত্ব কম নয়।

বিএফইউজে সভাপতি মোল্লা জালালের সভাপতিত্বে ও ডিইউজে সাধারণ সম্পাদক সোহেল হায়দার চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিএফইউজে মহাসচিব শাবান মাহমুদ, ডিইউজের সহসভাপতি খন্দকার মোজাম্মেল হক, যুগ্ম মহাসচিব আবদুল মজিদ, ডিইউজের যুগ্ম মহাসচিব আকতার হোসেন, আওয়ামী লীগের উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

সূত্রঃ আমার সংবাদ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here