বিদায় বললেন ক্রিস গেইল

148

মানবতার কন্ঠ ডেক্সঃ গতকাল নিজের শেষ ম্যাচে সেঞ্চুরির স্বাদ পেয়েছেন ক্যারিবীয় মারকুটে এ ব্যাটসম্যান। একই সঙ্গে দলকে জিতিয়েছেন। তার দারুণ পারফরম্যান্সে ঘরোয়া ৫০ ওভারের ক্রিকেটে বার্বাডোজকে ৩৩ রানে হারিয়েছে জ্যামাইকা। ম্যাচের আগেই গেইল জ্যামাইকার হয়ে আর লিস্ট ‘এ’ ম্যাচ না খেলার ঘোষণা দেন। দুই দলের খেলোয়াড়রা তাকে গার্ড অব অনার দিয়ে সম্মান জানায়। ম্যাচের পর গেইল জানান, জ্যামাইকার হয়ে আরেকটি প্রথম শ্রেণির ম্যাচ খেলার ইচ্ছা আছে তার। এরপর জ্যামাইকাকে ‘চিরতরে’ বিদায় জানাবেন। গেইলের ভাষ্য, জ্যামাইকার হয়ে শেষ ৫০ ওভারের ম্যাচ খেলতে নেমে সেঞ্চুরির স্বাদ পাওয়া সত্যিই আনন্দের। এটা সব সময় মনে থাকবে। পাশাপাশি দলকে নেতৃত্ব দিয়ে জেতানো ভিন্ন স্বাদের। নিজের দেশকে প্রতিনিধিত্ব করা সত্যিই গর্বের। ৩৯ বছর বয়সেও আমার পাশে থেকে আমাকে সমর্থণ করার জন্য ধন্যবাদ। আরও অনেক কিছু দেওয়ার ছিল। কিন্তু ক্রিকেট বাদেও জীবন আছে। সেটাও উপভোগ করতে হবে। ২৫ বছর ধরে টানা ক্রিকেট চালিয়ে যাওয়া দারুণ কিছু। এখন পরিবারকে সময় দিতে হবে। সম্ভব হলে আরেকটি চারদিনের ম্যাচ খেলতে চাই। আশা করছি সেটা খেলে বিদায় বলতে পারব। নিজের শেষ ম্যাচে ১১৪ বলে ১২২ রান করেছেন গেইল। ১০ চার ও ৮ ছক্কায় সাজান ইনিংসটি। তার ব্যাটিংয়ে ভর করে ২২৬ রান তুলে জ্যামাইকা।জবাবে বার্বাডোজ অলআউট হয় ১৯৩ রানে। ম্যাচসেরার পুরস্কারটাও উঠেছে গেইলের হাতে। জ্যামাইকার হয়ে গেইলের রয়েছে অনেক সুখস্মৃতি। এর মধ্যে ২০০১ সালের ৪২৫ রানের জুটি তার সেরা।লিওন গ্যারিককে নিয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বি দলের বিপক্ষে ৪২৫ রান করেছিলেন গেইল। তখন গেইলের বয়স ছিল ২১। আর গ্যারিকের বয়স ছিল ২৬। গেইল করেছিলেন ২০৮ রান। আর গ্যারিকের ব্যাট থেকে আসে ২০০ রান। এদিকে ২০১৯ বিশ্বকাপ খেলার ইচ্ছা থাকলেও বোর্ডের চুক্তিতে নেই গেইল।  ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে খেলবেন না ব্যাটিং এ দানব। জাতীয় দলে খেলার পরিবর্তে আফগানিস্তান প্রিমিয়ার লিগ খেলার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here